বছরের আলোচিত স্মার্টফোনগুলো

0
4

চলতি বছর স্মার্টফোনের ডিসপ্লের আকার বড় করার দিকে নজর ছিল ব্র্যান্ডগুলোর। প্রথমবারের মতো ডুয়াল ক্যামেরা ব্যবহারও হয়েছে এ বছর। নতুন সব প্রযুক্তির সন্নিবেশ ঘটিয়ে আলোচনায় আসা স্মার্টফোনগুলো সম্পর্কে তুলে ধরা হলো।

আইফোন টেন
বছরের সবচেয়ে আলোচিত স্মার্টফোন আইফোন টেন বাজারে আসে সেপ্টেম্বরে। এতে ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সর বাদ দিয়ে ফেস রিকগনিশন প্রযুক্তি যুক্ত করা হয়েছে। এ প্রযুক্তিতে অন্ধকারেও ব্যবহারকারীকে শনাক্ত করা সম্ভব। নতুন আইফোনে ব্যবহার করা হয়েছে এ১১ বায়োনিক প্রসেসর ও ৫ দশমিক ৮ ইঞ্চি মাপের সুপার রেটিনা ডিসপ্লে। ৩ গিগাবাইট র‌্যামের পাশাপাশি ছবি তোলার জন্য পেছনে রয়েছে ১২ মেগাপিক্সেল ডুয়াল ক্যামেরা। সামনের ক্যামেরাটি ৭ মেগাপিক্সেলের। দাম এক হাজার মার্কিন ডলার।


গ্যালাক্সি নোট৮

গ্যালাক্সি নোট৭-এর ব্যাটারি বিস্ফোরণ নিয়ে বছরের শুরুটা খুব খারাপ গেছে স্যামসাংয়ের। আগস্টে বাজারে আসা নতুন গ্যালাক্সি নোট৮ দিয়ে হারানো সুনাম ভালোভাবেই পুনরুদ্ধার করেছে স্যামসাং। ডিভাইসটিতে প্রথমবারের মতো ডুয়াল ক্যামেরা যোগ করা হয়েছে। ইনফিনিটি ডিসপ্লের গ্যালাক্সি নোট৮-এর পর্দার আকার ৬.৩ ইঞ্চি। কোয়ালকম স্ন্যাপড্রাগন ৮৩৫ প্রসেসরের সঙ্গে আছে ৬ জিবি র‌্যাম। দেশের বাজারে দাম ৯৪ হাজার ৯০০ টাকা


গুগল পিক্সেল২

গুগল তাদের দ্বিতীয় প্রজন্মের ফোন পিক্সেল২-এর ডিসপ্লে ৫ ইঞ্চির। সামনে ৮ ও পেছনে আছে ১২ দশমিক ২ মেগাপিক্সেল ক্যামেরা। সঙ্গে রয়েছে ২৭০০ এমএএইচ ব্যাটারি। এতে অ্যানড্রয়েডের সর্বশেষ সংস্করণের ওরিও ৮.০ ও সঙ্গে ১.৯ গিগাহার্জ অক্টাকোর প্রসেসর ব্যবহার করা হয়েছে।। ডিসপ্লের রেজল্যুশন ১০৮০ বাই ১৯২০ পিক্সেল। ফাস্ট চার্জিং প্রযুক্তিও আছে ফোনটিতে।


হুয়াওয়ে পি১০

বছরের অন্যতম আলোচিত স্মার্টফোন ছিল হুয়াওয়ে পি১০। এর ৫.১ ইঞ্চি ডিসপ্লের রেজল্যুশন ১৯২০ বাই ১০৮০ পিক্সেল। আছে অক্টাকোর প্রসেসের, ৪ গিগাবাইট র‌্যাম ও সর্বোচ্চ ৬৪ গিগাবাইট স্টোরেজ। ২০ ও ১২ মেগাপিক্সেল লাইকা লেন্সসমৃদ্ধ ডুয়াল ব্যাক ক্যামেরা রয়েছে এতে।

সেলফির জন্য সামনে আছে ৮ মেগাপিক্সেল ক্যামেরা। তিন হাজার ২০০ এমএএইচ ধারণক্ষমতার ব্যাটারি ও ফাস্ট চার্জিং সুবিধা রয়েছে এতে। দেশের বাজারে দাম ৫৬ হাজার ৯০০ টাকা।


নুবিয়া জেড১১

এই স্মার্টফোনে ব্যবহার করা হয়েছে আইপিএস এলসিডি ও পোলারাইজার প্রযুক্তি। তাই রোদেও স্ক্রিনের লেখা বা ছবি দেখতে সমস্যা হবে না। পেছনের ক্যামেরা ১৬ এবং সামনেরটি ৮ মেগাপিক্সেলের। মূল ক্যামেরার ‘পিডিএফ অটোফোকাস’ সুবিধা দ্রুত ছবি তুলতে সাহায্য করবে। কম আলোয় ভালো ছবির জন্য মূল ক্যামেরায় f/2.0 অ্যাপারচারের লেন্স ও সেলফি ক্যামেরায় f/2.4 অ্যাপারচারের ফিক্সড ফোকাস লেন্স দেওয়া হয়েছে। দাম ৩৫ হাজার টাকা।


ওয়ান প্লাস ফাইভ-টি

নভেম্বরে বাজারে আসে ওয়ান প্লাস ফাইভ-টি। ফোনটির ওপরে ও নিচে বেজেল কমিয়ে ডিসপ্লের আকার বাড়ানো হয়েছে। ওএলইডি প্রযুক্তির ডিসপ্লের রেজল্যুশন ২১৬০ বাই ১০৮০ পিক্সেল। দুই ক্যামেরাতেই যুক্ত করা হয়েছে বিশেষ ধরনের ফেইস রিকগনিশন। এই প্রযুক্তিতে সামনের ১৬ মেগাপিক্সেল ক্যামেরা ব্যবহার করে ব্যবহারকারীর চেহারার ১০০টি স্থান স্ক্যান করে ফোনটি আনলক হয়। দাম ৪৯৯ ডলার।


অপো এফ৫

৬ ইঞ্চি ডিসপ্লের ফোনটির পুরুত্ব কম হওয়ায় ধরতে সুবিধা হয়। সেলফি তোলার জন্য বিশেষায়িত ফোনটিতে রয়েছে এফ/২.০ অ্যাপারচার লেন্সের ২০ মেগাপিক্সেল সেলফি ক্যামেরা। এর বিশেষ প্রযুক্তি বিষয়বস্তু অনুযায়ী ছবি স্বয়ংক্রিয়ভাবে সম্পাদনা করে দেবে। পেছনের মূল ক্যামেরাটি ১৬ মেগাপিক্সেলের। ৪ গিগাবাইট র‌্যাম থাকায় ভারী অ্যাপ্লিকেশনগুলোও অনায়াসে চলে। ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সরের পাশাপাশি ফেইস আনলক সুবিধাও আছে। দাম ২৪ হাজার ৯৯০ টাকা।


নকিয়া২

স্মার্টফোনের চার্জ নিয়ে ব্যবহারকারীদের দুশ্চিন্তা ঘুচিয়েছে ‘নকিয়া২’। এতে ব্যবহার করা হয়েছে পাঁচ ইঞ্চি আইপিএস এলসিডি ডিসপ্লে। পেছনে থাকা ৮ মেগাপিক্সেল মূল ক্যামেরা দিয়ে দিনের আলোয় ভালো মানের ছবি তোলা যাবে। সেলফির জন্য সামনে আছে ৫ মেগাপিক্সেল ক্যামেরা। ৪১০০ এমএএইচ ধারণক্ষমতার ব্যাটারিটি স্ক্রিন চালু রাখতে পারবে টানা ৯ ঘণ্টা। দাম ৯ হাজার ৬০০ টাকা।

 

এই লেখাটি পূর্বে প্রকাশিত হয়েছিলো ৩০ ডিসেম্বর ২০১৭ সালে কালের কন্ঠের টেক বিশ্ব পাতায়। লেখাটি হুবহু তুলে দিচ্ছি। কালের কন্ঠের অনলাইনে লেখাটি পড়ার লিংক ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here